LYRIC

শিরোনামঃ সেই ফুলের দল
কন্ঠঃ ঋতুপর্ণা দাস / চন্দ্রিমা মিত্র
কথাঃ গৌতম চট্টোপাধ্যায়
সুরঃ গৌতম চট্টোপাধ্যায়
ব্যান্ডঃ মহীনের ঘোড়াগুলো
অ্যালবামঃ ঝরা সময়ের গান

রাবেয়া কি রুকসানা ঠিক তো মনে পড়ে না
অস্থির এ ভাবনা শুধু করে আনাগোনা
ফেলে আসা দিন তার মিছে মনে হয়
নামে কি বা আসে যায়
সোহাগে আদরে জানি রেখেছিল কেউ এই নাম

আব্বা না আপা নাকি
কারো মনে পড়ে তাকি
তোমরা তা জানোনাকি
সময় দিয়েছে ফাঁকি
অভিমানী সে মেয়েটি গেছে হারিয়ে
বুকে ভরসা নিয়ে
সীমান্ত পেরিয়ে সে এসেছিল ছেড়ে তার গ্রাম

জানি সে কোথায়
এই শহরে কোন বাগানে
সে হয়ে আছে ফুল
প্রতি সন্ধ্যায় পাপড়ি মেলে দিয়ে
সে আবার ভোরে ঝরা বকুল

সেই মেয়েটির মত আরেকটি মেয়ে সে তো
সন্ধ্যাপ্রদীপ দিত
যতনে গান শোনাত
হালকা পায়ে বেড়াত বেণী দুলিয়ে
কে যে নিল ভুলিয়ে
খেলার সাথীরা তার
খুঁজতে আসেনা আর রোজ

জানি সে কোথায়
এই শহরে কোন বাগানে
সে হয়ে আছে ফুল
প্রতি সন্ধ্যায় পাপড়ি মেলে দিয়ে
সে আবার ভোরে ঝরা বকুল

লক্ষ্মী নামের মেয়ে
আজো তার পথ চেয়ে
ফেলে আসা তার গাঁয়ে
মা কাঁদে মুখ লুকিয়ে
সন্ধেবেলায় শাঁখ বাজে না তো আর
এতে আছে কী বলার
আজও কেউ জানে না তো
কোথায় সে হয়েছে নিখোঁজ

জানি সে কোথায়
এই শহরের কোন বাগানে
সে হয়ে আছে ফুল
প্রতি সন্ধ্যায় পাপড়ি মেলে দিয়ে
সে আবার ভোরে ঝরা বকুল

লক্ষ্মী রুক্সানারা
আরো যত ঘর ছাড়া
ত্রস্ত ও দিশেহারা
তখনই জাদুকরেরা
নিমেষে বানিয়ে দেয়
বাগানের ফুল
ঠিক নির্ভুল
এভাবে মেয়েরা সব একে একে
ফুল হয়ে যায়

নতুন বাগানে এসে
নিজেকে না ভালবেসে
ফুলের দলেরা শেষে
কথা বলে হেসে হেসে
পদ্ম গোলাপ জুঁই চম্পা চামেলি
ওলো টগর শেফালী
পোড়ারমুখিরা তোরা ফুল হয়ে রয়ে গেলি হায়

জানি সে কোথায়
এই শহরের কোন বাগানে
সে হয়ে আছে ফুল
প্রতি সন্ধ্যায় পাপড়ি মেলে দিয়ে
সে আবার ভোরে ঝরা বকুল

Comments

SHARE